Author of this content has low reputation.

সাইন্টোলজিঃ নয়া নজরে জীবন ----! পর্বঃ ০১

হ্যালো বন্ধুরা, আশা করি আপনারা সবাই ভাল আছেন। আমিও অনেক ভালো আছি। বন্ধুরা আজকে থেকে আমি জীবন যাপনের গল্প শেয়ার করে যাব। আপনার জীবনে কি কি হতে পারে, কি আছে, আপনি আপনার জীবনে কি করতে পারেন, কিভাবে করতে পারবেন তার সম্পূর্ণ বিবরণ তুলে ধরব আমি। এগুলো আমি তুলে ধরবো পাঠ বা পর্ব অনুযায়ী। আপনারা কিন্তু অবশ্যই পড়ে যাবেন আমার পর্ব বা পাঠ গুলো। তাহলেই বুঝতে পারবেন, আপনার নয়া জীবন সম্পর্কে। আপনারা এই গল্প পড়বেন আর মিলাবেন আপনার জীবনের সাথে মিল আছে কিনা!।


ভূমিকা

আপনি কে বলুন তো? আপনি কোথা থেকে এলেন? আপনার জীবনে কি ঘটতে পারে? আপনি কি মাটির মানুষ, যেমন অন্যরা বলে? কিছুদিন বাঁচবার পর আপনি কি আবার সেই মাটির সঙ্গে মিশে যাবে? না আপনি অন্য কিছু? কিছু উন্নততর।

আপনার লক্ষ্য কি? আপনি কোথায় চলেছেন? আপনি এখানে কেন? আপনি কে? এর উত্তর সাইন্টোলজি কাছে আছে, এমন উত্তর যাসত্য ও কার্যকরী। কারণ আপনি সাইন্টোলজি বিষয়বস্তু।


এখন আসি প্রধান গল্পে

আমার আজকের গল্প হচ্ছে, জীবনে কি সুখী হওয়া সম্ভব? জানতে হলে অবশ্যই আমার পুরো গল্প পড়তে হবে.


পর্ব ০১

সুখী হওয়া কি সম্ভব

woman-570883__480.jpg
Source

বহুলক ভেবে পান না এই আধুনিক, ছুটে চলা পৃথিবীতে সুখের অস্তিত্ব আছে কিনা। একজন মানুষের কাছে প্রচুর অর্থ থাকতে পারে, তার মন যা চায় তাই সে পেতে পারে অথচ হতে পারে তাও সে অসুখী। আমরা এমন একজনের দৃষ্টান্ত নেই-যিনি সারা জীবন কাজ করেছেন, পরিশ্রম করেছেন এবং একটা বড় পরিবারকে প্রতিপালন করেছেন। তিনি জীবনের সেই দিনটির জন্য অপেক্ষা করেছিলেন যখন অবসর গ্রহণ করে সুখে ও আনন্দে থাকবেন। সারা জীবন যা করতে চেয়েছিলেন,করার জন্য তার হাতে অঢেল সময় থাকবে। অবসর গ্রহণ করার পর যখন আমরা তাকে দেখি, তাকে কি সুখী দেখায়? তখন তিনি তার ফেলে আসা পরিশ্রমের দিনগুলির কথাই ভাবেন।

আমাদের জীবনের প্রধান সমস্যা হলো সুখ।

এই পৃথিবী কি সুখ অর্জন করার জন্য তৈরি হয়েছে? হতে পারে আবার নাও হতে পারে। আপনার পক্ষে এই পৃথিবীতে কি সুখী হওয়া সম্ভব? হতেও পারে আবার নাও হতে পারে। হয়তো এই পৃথিবীতে সুখী হওয়া সম্ভব নয়, তা সত্ত্বেও আমাদের প্রায় সবাই সুখী ও আনন্দিত হবার লক্ষ্য পূরণ করতে চাই।

তারপর প্রায়ই আমরা চারপাশের জগতের দিকে তাকাই, আর বলি না এখানে কেউ সুখী হতে পারে না। আমরা নোংরা বাসন দেখি, আরো দেখি গাড়িটার রং করা দরকার, একটা নতুন গ্যাস হিটার দরকার, একটা নতুন কোট দরকার, চাই একজোড়া নতুন জুতা, তারপর বলি যদি কোনো চাহিদা না মেটে, তাহলে কি কারো পক্ষে সুখী সম্ভব? মানুষ তার ইচ্ছামত কাজ করতে পারে না, ফলে এই পরিবেশ তাকে সেইভাবে সুখী হতে দেয় না।

শুনুন আপনাদের এক মজার কথা বলি। বহু দার্শনিক এই কথা বহুবার বলেছেন যে আপনার সমস্ত সুখের সন্ধান আপনার মধ্যেই আছে।

আপনার কি মনে পড়ে, আপনি যখন পাঁচ বছরের ছিলেন, তখন আপনি সকালে বেড়াতে বের হতেন, আপনার মনে হতো কত সুন্দর দিন। তারপর আপনি ফুল দেখতেন, ফুল গুলো কত সুন্দর। ২৫ বছর পর আপনি সকালে উঠে ফুলগুলো দেখলেন ফুলগুলো বিবর্ণ। দিনটা সুন্দর নয়। কি বদলে গেছে এখানে, এগুলি কি সেই একই ফুল, পৃথিবীটাও এক, তবে কিছু অবশ্যই পরিবর্তন হয়েছে। হয়তো আপনি নিজেই।

একটি শিশু নিজের জীবনে মাধুর্য খুলে সেই জীবন থেকেই আনন্দ আহরিত করে। সে যেন জাদুর ছড়ি ঘুরিয়ে সমস্ত জীবনকে মোহময় করে তোলে। এটা সে কেমন ভাবে করে? একজন বলিষ্ঠ পুলিশকর্মী ও তার পোষাক আশাক দেখে বালকটি স্থির করে যে সে একজন পুলিশ কর্মী হবে। আর ২৫ বছর বাদে সেই পুলিশকেই ছুটোছুটি করে স্পিডোমিটার পরীক্ষা করতে দেখে সে বলে, ধুর পুলিশগুলো--।

তবে এখানে কি পাল্টেছে? পুলিশ টা কি বদলে গেছে? না। শুধু তার প্রতি মনোভাব টা পাল্টে গেছে। জীবনযাপনের তারতম্য নির্ভর করছে জীবনের প্রতি ব্যক্তির দৃষ্টিভঙ্গির উপর। এই কথা জানার জন্য আপনাকে হাজারটা প্রাচীন গ্রন্থ পড়তে হবে না। কিন্তু সময়-সময় এটা স্পষ্ট করে দেওয়া দরকার যে জীবন অত বদলায় না আপনি বদলান।


এখন আপনি আপনার দৃষ্টি থেকে বলেন যে জীবনে কি সুখী হওয়া সম্ভব? এখানে আপনি পড়ে কি বুঝলেন, আসলেই কি জীবনে সুখী হওয়া সম্ভব। অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। কালকে আবার দ্বিতীয় পর্ব নিয়ে হাজির হব একই সময়ে। সবাই সুস্থ থাকবেন ভালো থাকবেন।

লেখালেখিতে-
@hayat221

Cc-
@bdvoter


H2
H3
H4
3 columns
2 columns
1 column
Join the conversion now